Wednesday, February 29, 2012

পাঁক

ঘুরে ফিরে এক পথে চলা 
               নদীগুলো হেসে চলে
                 তোর চলা দেখে!!!
পাঁক !
শুরু নেই শেষ নেই
ঘুরপথে ঘোরা...!

Sunday, February 26, 2012

আলো...!


এক ঝাঁক ছেলে-মেয়ে গিয়েছিল তোমাদের কাছে
ভেবেছিল হাতে আছে বাতি...
মেটাতে আঁধার তোমাদের
                 চোখে স্বপ্ন... আর হৃদয়ে অনেকটা বিশ্বাস
                 অনে-এ-এ-এ-একটা...!
গিয়ে দেখে ঝলমলে আলো তোমাদের সবকটা বুকে!!!

Tuesday, February 21, 2012

আপন-তালা

একটা পোড়ো বাড়ির গায়ে মস্ত একটা জঙ ধরা তালা।

               আজ আমি হঠাৎ এদ্দিন বাদে... চাবি হাতড়ে বেড়াচ্ছি !
দিনের গা বেয়ে চলতে চলতে ...           পঁচিশ বছর!
পঁচিশটা বছর আমি এই পোড়ো বাড়ির সাথে গল্পগাছা করি...
রোজ ওকে শোনাই ...
                                   আজ আমি কোন জামা কিনলাম
                                   কোন জুতোটা আমার পছন্দ হল না
                                    কোন সভায় আমি জামদানি পড়লাম
                                    লিভাইস -এর নতুন শেড এর ইতিহাস
                                    কোন বদমাশ আমার নিন্দে করে চলেছে
                                    কে আজ সভায় আমাড় প্রশংসা করল...

          এমন আরও কত কি!!!
           পঁচিশটা বছর ধরে!
আর আজ আমি এতকাল বাদে... চাবি হাতড়ে বেড়াচ্ছি!!
              

Monday, February 20, 2012

কাব্য-পথ

 আমার কবিতার সাথে আজ আমি চুক্তিবদ্ধ
 ওর হাত ধরে আজ আমি ওকে নিয়ে যাব বহুদূরে 
 ও মানুক, না মানুক।
 খাতার বুক থেকে ছিনিয়ে নেব আজ ওকে 
 সেই কোনকালে কোন এক ধানক্ষেতে... কিংবা ... বাজরার বীজের পাশে ... 
 অথবা তারি আশে পাশে... কোথাও একটা
 কবিতার জন্ম।
 আর তারপর পথ-ঘাট, খানা-খন্দ, নদীনালা পার হয়ে
 কবিতা এখন সময় কাটায় নিয়ন্ত্রিত ঘরে...
 যেখানে হাওয়া... উষ্ণতা ... অনুভূতি... সত্যি-মিথ্যে... 
 এ সব কিছু খুব সুন্দর ভাবে গোছগাছ করে রাখা...
 ভারী সুন্দর, এবং নিয়ন্ত্রিত।


  কবিতা এখন বুড়ো-আঙ্গুল দেখায়...
 যেমন ধরুন...                  ওই হাড়গিলে বুড়োটাকে 
                                         তাজ হোটেলের সামনে বসা ভিখিরিটাকে 
                                          তোমার-আমার মৃত অস্তিত্বকে।
 তাই আজ আমি আপমানিত...
 তাই আজ আমি অত্যাচারী...


    হয় কবিতা পথে নামবে আজ
     না হয়...                                পথ হাঁটা দেবে নিজের মত করে। 
  

Sunday, February 19, 2012

নাম দেবো না...

   "যদি ঘুম নেই তোর চোখে
    তবে প্রেম জাগে কি বুকে?"

"তোর কাছে জল ভরা                         
  তবু মরুর বুকে ধরা" 


"চোখ খুলে রাখ তুই
আর মুখ বুজে সব শুই"


"সাদার গায়ে কালো
আমার লাগে ভালো"



"তুই যেই হারিয়ে যাস 
সেই আমায় খুঁজে পাস"

সমান্তরাল

            তনয় জানে জুঁই -এর ফোন খুইয়ে ফেলাটা নেহাতই মনের ভুলে নয়... 'জানে' সে। প্রমাণ খোঁজারও প্রয়োজন হয় না আজকাল আর। বছর তিন হল... মনে হওয়া, বোঝা... আর তারপর 'জানা'। এখন তনয় জানে। ঠিক যেমন ভাবে জুঁইও 'জানে'; তনয়ের হঠাৎ ছুটে বাড়ি আসা... এক্কেবারেই আকস্মিক নয়...।

           দুজনে এখন বহু কথা হয়... শুরুর দিনগুলোর চেয়ে অনেক অনেক বেশী... কথায় কথায় কাটাকুটিও খেলা হয় ঢের। তবু প্রয়োজন হয়ে ওঠে না এই জানতে পারাটা জানাবার... পাছে আবার কাটাকুটি!!!

           চলতে থাকে দুই সবজান্তার জীবন... সমান্তরালে।।