Monday, November 12, 2012

ছন্নছাড়া




পড়ন্ত বিকেলে ফসল – তোলা মাঠের ওপর কিছু সরু কালো পা। তার অনেকটা ওপরে সূর্যের লালচে টিপ। এরা দুজন মিলে একটা চরিত্র তৈরি করে। যে চরিত্রটা রোজ সকালে আমায় ভাত বেড়ে দেয়।  

কুয়াশার মাঝে ফ্যাকাসে হয়ে থাকা সবুজের ভিড়ে হঠাৎ একটা গনগনে লাল চিমনি... তোমার পেলব শরীরে একফোঁটা আম্লিক ক্ষত!

মাঝমাঠে বসে থাকা অকর্মণ্য মন আর ঠাণ্ডাঘরের কিউবিকল–এ বাড়তে থাকা ভুঁড়ি... দুর্যোগে সব এক হয়ে যায়।

মাটিকে মা বলে ডাকি...
যাতে তার বুক উপড়ে বহুতলের দূরত্ব পেরোতে লজ্জারা ছায়া না মাড়ায়। ঘূর্ণিঝড়ে ছিটকে গেলে আবার সে শূন্য বুক খিমচে ধরতে একবিন্দু দ্বিধা না জন্মায়।